বাস ভাংচুর ও সাংবাদিক নাজেহাল ঘটনায় নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের ক্ষমা ও দুঃখ প্রকাশ - TrickMela.com
Monday , November 19 2018
Home / Bangladesh / বাস ভাংচুর ও সাংবাদিক নাজেহাল ঘটনায় নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের ক্ষমা ও দুঃখ প্রকাশ

বাস ভাংচুর ও সাংবাদিক নাজেহাল ঘটনায় নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের ক্ষমা ও দুঃখ প্রকাশ

 

 

তুচ্ছ ঘটনায় ত্রিশাল জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের সাথে পরিবহন শ্রমিকদের ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া, সংঘর্ষ ও ৪০টি বাস ভাংচুর, সাংবাদিক ও শ্রমিকদের মারধরের ঘটনায় দোষী শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের বিচারের আশ্বাসের প্রেক্ষিতে উত্তরাঞ্চলীয় পরিবহন মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদের ডাকা অনিদ্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘট আবারো স্থগিত করা হয়েছে ।

মঙ্গলবার দুপুরে ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে কবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়, বিভাগীয় কমিশনার ও ডিআইজি, পরিবহন মালিক-শ্রমিক ও সাংবাদিক এবং রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের নিয়ে সমঝোতা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এসময় জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ এইচ এম মোস্তাফিজুর রহমান গত ১৩ মে সৃষ্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের মিনিবাস ও একটি ট্রাকের সাথে ধাক্কা লাগাকে কেন্দ্র করে কয়েকটি ঘটনার জন্য গভীর দুঃখ প্রকাশ, তীব্রনিন্দা জ্ঞাপন এবং প্রকৃত দোষীদের চিহ্নত কওে তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে এবং ভবিষ্যতে বিশ্ববিদ্যালয়ের অম্ভ্যন্তরীন কোনো ঘটনা নিয়ে মহাসড়ক অবরোধ না করার আশ্বাস প্রদান করেন উপাচার্য । এরসাথে ঐকমত্য পোষক করেন জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি নজরুল ইসলাম বাবু ও সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম রাকিব।

বিভাগীয় কমিশনার অফিস আয়োজিত বিভাগীয় কমিশানর জি. এম সালেহ উদ্দিন আলোচনার প্রেক্ষিতে সিদ্ধান্তমূলক বক্তব্যে জানান, ওই ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় দুঃখ প্রকাশ করছে, ঘটনার সাথে ছাত্র-শিক্ষকরা জড়িত থাকলে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন আরেকটি তদন্ত কমিটি গঠন করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবে। এ ছাড়া ময়মনসিংহের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেটকে আহবায়ক করে, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার, ত্রিশাল উপজেলা নির্বাহী অফিসার, ঘটনাস্থলের সংশ্লিস্ট ইউপি চেয়ারম্যানসহ অন্যান্য সদস্যদের সমন্বয়ে আরেকটি প্রশাসনিক তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। এই কমিটি আগামী দুই মাসের মধ্যে বিভাগীয় কমিশনারের কাছে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়ার জন্য সময় বেধে দেয়া হয়েছে।

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন ডিআইজি নিবাস চন্দ্র মাঝি, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার মোঃ মোজাম্মেল হক, পুলিশ সুপার সৈয়দ নূরুল ইষলাম, জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি অ্যাডভোকেট জহিরুল হক খোকা, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যাপক ইউসুফ খান পাঠান, ঢাকা জেলা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সভাপতি আবুল কালাম, উত্তরাঞ্চলীয় পরিবহন মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদের আহবায়ক এবং ঢাকা বিভাগীয় পরিবহন মালিক সমিতির মহাসচিব ও জেলা চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রির সভাপতি আমিনুল হক শামীম (সিআইপি), জেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল, বিশ্বাবদ্যালয়ের রেজিষ্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) ড. হুমায়ুন কবির, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ওসমান আলী ও সাংগঠনিক সম্পাদক হুমায়ুন কবীর খান, জেলা মোটর মালিক সমিতির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মমতাজ উদ্দিন মন্তা, ময়মনসিংহ জেলা মোটর যান কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি নজরুল ইসলাম, ময়মনসিংহ সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি আতাউল করিম খোকন, ময়মনসিংহ প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শেখ মহিউদ্দিন আহাম্মেদ, এটিএন বাংলার স্টাফ রিপোর্টার সাংবাদিক শাহ আলম উজ্জল, ত্রিশাল প্রেসক্লাবের সভাপতি খোরশিদুল আলম মুজিব ও সহ-সভাপতি হোসাইন শাহীদ প্রমূখ।

গত ১৩ মে কবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি বাসকে অপর একটি ট্রাক ধাক্কা দেয়। এনিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের সাথে পরিবহন শ্রমিক ও এলাকারবাসীর দয়ায় দয়ায় ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া ও সংঘর্ষের জেরে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীরা শহরের বাইপাস এলাকায় ও ত্রিশালে কমপক্ষে ৪০টি বাস ভাংচুর ও শ্রমিকদের মারধর করে দোকানপাট ও ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে ব্যপক ভাংচুর চালায়। এমনকি কৃষকের ধান ক্ষেত, কাঁচাধান ও খর পুড়িয়ে ফেলে।

পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে উশৃঙ্কল শিক্ষার্থীরা সাংবাদিকদের মারধর ও ক্যামেরা ছিনিয়ে নেয়। এতে উশৃঙ্খল শিক্ষার্থীরা প্রায় দুই কোটি টাকার ক্ষতি সাধন করে। এঘটনায় কোতুয়ালী মডেল থানায় ও ত্রিশাল থানায় পৃথক ৩টি মামলাও দায়ের করা হয়। এরপর বাস ভাংচুর, শ্রমিক মারধর ও সাংবাদিকদের মারধরের ঘটনায় ময়মনসিংহ কোতোয়ালী মডেল থানা ও ত্রিশাল থানায় প্রায় দেড় কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দাবি করে বিশ্ববিদ্যালয়ের অজ্ঞাত ৪/৫‘শ শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে পৃথক ৩টি মামলা দায়ের করে জিলা মটর মালিক সমিতি, ত্রিশাল পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন ও সাংবাদিকরা।

Check Also

যে কথা বলে ইমরানকে তুলে নিয়ে গেল র‌্যাব

    গণজাগরণ মঞ্চের একাংশের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকারকে তুলে নিয়ে গেছে র‌্যাব-৩।রাজধানীর শাহবাগ থেকে …

Leave a Reply